ইতালি II আলামিন সিকদার ইরাজ, নিজস্ব প্রতিবেদক:
আতশবাজির দিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে গিয়ে ইতালির রোম শহরের কেন্দ্রে মারা গেছে শতাধিক পাখি। করোনা ভাইরাসের কারণে পুরো ইতালিতে লকডাউন ছিল। আতশবাজি সহ যে কোনো আয়োজনের উপরে নিষেধাজ্ঞা ছিল। কিন্তু নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে অনেকেই রাত বারোটার আগে থেকেই আতশবাজিতে মেতে ওঠে। আর এই অতি উজ্জ্বল আলোর ছটা এবং প্রকম্পিত উচ্চ শব্দ শতাধিক পাখির মৃত্যু কারণ হয়েছে।

সকালে রোম শহরের রেল স্টেশনের আশেপাশে রাস্তাগুলোতে দেখা যায় শতাধিক পাখির মৃতদেহ। বিশেষ করে ভিয়া ন্যাশনালে, ভিয়া কাভুর, ভিয়া ফরি ইম্পিরিয়ালের রাস্তায় মৃত পাখিগুলোর দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। সাধারণত এই রাস্তাগুলোতে বেশ বড় বড় গাছ রয়েছে। সন্ধ্যার পরে এই এলাকাগুলোতে পাখির আনাগোনা বেড়ে যায়।

ধারণা করা হচ্ছে, আতশবাজি ও প্রকম্পিত শব্দ পাখির ভিতরে ভয় ঢুকিয়ে দেয়। পরবর্তীতে তারা এদিক-ওদিক ছোটাছুটি করে রাস্তায় থাকা উচ্চ শক্তিসম্পন্ন ইলেকট্রিক ক্যাবল ও দালান কোঠার সাথে ধাক্কা খেয়ে এবং স্ট্রোক করে মারা যায়।

তবে এ ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিয়েছে ইতালিয়ান পাখি সুরক্ষা লীগ (লিপু)। এলাকায় অনেক বড় বড় এবং বেশি গাছ থাকার কারণে পাখিদের অভয়ারণ্য হয়ে উঠেছিল। তবে ২০১০ সালের পর থেকে কিছুটা কমতে থাকে। ২০২০ সালের শুরু থেকে করোনা মহামারীর কারণে অন্যান্য দেশের মতো ইতালিতেও বিভিন্ন দোকানপাট , কল কারখানা, যানবাহন চলাচল কমে যায় এবং স্থবির হয়ে পড়ে সবকিছু। এর ফলে পরিবেশ আরো উজ্জ্বল হয়ে ওঠে এবং পশুপাখি বসবাসের উপযোগী হয়ে ওঠে। যার কারণে প্রতি বছরের তুলনায় আরও অনেক বেশি পাখি ফিরে আসে এবং বসবাস শুরু করে।

রোম শহরের কেন্দ্রে, বিশেষ করে এই এলাকাগুলোতে প্রতি বছরের তুলনায় এ বছরে আরো বেশি পাখি বসবাস করা শুরু করে। কিন্তু নতুন বছরের উচ্চ কম্পন যুক্ত শব্দ ও আতশবাজিতে পাখিরা এদিক-ওদিক ছোটাছুটি করে এবং উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ইলেকট্রিক ক্যাবল ও দালানকোঠার দেওয়ালের সাথে ধাক্কা খেয়ে ও বাধাপ্রাপ্ত হয় স্ট্রোক করে মারা যায়।

পাখিদের এমন করু মৃত‍্যুতে বিভিন্ন প্রাণী সংগঠনগুলো ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এবং বিবৃতি প্রদান করেছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.