আজ দ্রাঘি সরকারের নতুন ডিপিসিএম-র স্বাক্ষর করতে যাচ্ছে যেটা কার্যকর হবে ২ মার্চ থেকে ৬ এপ্রিল পর্যন্ত। স্কুল ও দোকানপাট বন্ধের সমস্যা নিয়ে সম্মিলিত ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

ইতালি II আলামিন সিকদার ইরাজ, বার্তা কক্ষ:


প্রথমে কন্ট্রোল রুম, তারপরে গভর্নরদের সাথে বৈঠক এবং বিকেলে প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাঘি নতুন ডিপিসিএম স্বাক্ষর করবেন বলে আশা করা হচ্ছে ।যা মার্চ থেকে এপ্রিল পর্যন্ত কার্যকর হবে।


নতুন ডি পি সি এম এ করোনাভাইরাস এর জন্য নতুন বিধি নিষেধ আরোপ করা হবে যাতে করোনা ভাইরাসের আরো বিস্তৃতি না ঘটাতে পারে।


গতকাল স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবার্তো স্পেরানজা বলেছিলেন, “আমাদের চ্যালেঞ্জের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে হবে”।


দোকানপাট ও স্কুল নিয়ে খোলা বা বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়ে মত বিরোধ চলছে।তবে সর্বোপরি তা সমাধানের চেষ্টা করছে ।


ইতিমধ্যে বৈজ্ঞানিক কারিগরি কমিটির বিশেষজ্ঞরা এবং কিছু কিছু মন্ত্রীর গতকালের বৈঠকে তারা তাদের অবস্থান বা মতামত পরিষ্কার করে বলেছেন,”স্কুল বন্ধ করলে অবশ্যই দোকান পাট বন্ধ করতে হবে”
তারা আরো বলেছেন এরকম একটা সিদ্ধান্ত নেয়া হোক যাতে করে পুরো ইতালি জুড়ে একই নিয়ম কারণ এর আওতাধীন হয়।


লাল অঞ্চলগুলোতে সমস্ত স্কুল বন্ধ থাকবে। তবে কমলা অঞ্চল গুলো নিয়ে এখনও সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি।তবে কিছু অঞ্চলের গভর্নর ইতিমধ্যে স্কুলের ক্লাস বন্ধ করার জন্য অধ্যাদেশ জারি করেছেন।
তবে আজ সরকার এমন একটি সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে যাচ্ছে যাতে পুরো ইতালিতে একই ধরনের অধ্যাদেশ এবং আইন সবাই মেনে চলবে।


এছাড়া আজকের স্বাক্ষরিত নতুন অধ্যাদেশে আরো অনেক কিছুর ওপর বিধি-নিষেধ আসতে পারে এবং কোন কিছুর জিনিসের উপর বিধিনিষেধ উঠতে পারে বলে জানা গেছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.