মোহাম্মদ আদনান মামুন, গাজীপুর-

গাজীপুর সদর উপজেলার মনিপুর এলাকায় রেহানা আক্তার নামে এক যুবতীর ৭ টুকরো লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী জুয়েল আহমেদকে গ্রেপ্তার করেছে জয়দেবপুর থানা পুলিশ।

রবিবার (৭ মার্চ) গাজীপুর সদরের ভাওয়ালগড় ইউনিয়নের মনিপুরে আরাবী ফ্যাশন সংলগ্ন তিনটি স্থান থেকে লাশের খন্ডিত অংশগুলো উদ্ধার করা হয়। নিহত রেহানা (২০) সুনামগঞ্জের বিশ্বাম্ভরপুর থানার পলাশ ইউনিয়নের মালেকের মেয়ে।

ঘাতক স্বামী জুয়েল (২২) সুনামগঞ্জ জেলার বিশ্বাম্ভরপুর থানার পলাশ ইউনিয়নের বাতেনের ছেলে। তারা সম্পর্কে বিয়াই-বিয়াইন। প্রেমে জড়িয়ে দুইবছর আগে পালিয়ে বিয়ে করেছিলেন। তারা মনিপুর এলাকায় জাকিরের বাড়িতে ভাড়া থাকতো। রেহানা স্থানীয় আরাবী ফ্যাশনে চাকরি করতেন এবং জুয়েল চাকরি হারিয়ে কাপড়ের ব্যবসা করতেন।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার সাংসারিক কলহের একপর্যায়ে টয়লেটের দরজা আটকে আত্মহত্যা করেন রেহানা। মৃত্যু নিশ্চিত হলে জুয়েল ফেঁসে যাওয়ার ভয়ে লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে রেহানার মৃতদেহটি ৭ খণ্ড করে বস্তায় ভরে বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে রাখে।

জয়দেবপুর থানার পরিদর্শক নাজমুল হুদা জানান, স্থানীয়রা ফোন দিলে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে স্বামী জুয়েলকে আটক করি এবং তার কথামতো লাশের খণ্ডিতাংশ উদ্ধার করি। ঘটনার তদন্তসাপেক্ষে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.