ইউরোপীয় ইউনিয়ন গ্রীস দ্বীপপুঞ্জের পাঁচটি অভিবাসী শিবির পুনর্নির্মাণ এবং সজ্জিতকরণের জন্য ২৭৬ মিলিয়ন ইউরো বরাদ্দ দেবে, সংবাদ ইনফোমাইগ্রেন্ট অ‍্যারাবিক মিডিয়ার।

অভিবাসী II সম্পাদনা ডেস্ক:

লেসবোস সফরকালে ইউরোপীয় কমিশনার ইলভা জোহানসন তুরস্ক সরকারকে গ্রীস থেকে আগত অভিবাসীদের গ্রহণ করার আহ্বান জানান, এবং এথেন্সকে তার নৌবাহিনী দ্বারা অভিবাসীদের জোরপূর্বক ফিরিয়ে দেওয়ার অভিযোগটি তদন্ত করার আহ্বান জানান।

সেখানকার পরিস্থিতি পরিদর্শন করতে লেসবোসের সফরের পর, ইউরোপীয় কমিশনার ইয়েলফা জোহানসন সোমবার, ২৯ শে মার্চ গ্রীক দ্বীপপুঞ্জের অভিবাসীদের অবস্থার সাথে সম্পর্কিত নতুন নতুন সিদ্ধান্তের একটি সিরিজ জারি করেছিলেন এবং ঘোষণা করেছিলেন যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন গ্রীক দ্বীপে পাঁচটি অভিবাসী শিবির পূণর্নির্মাণের জন্য ২৭৬ মিলিয়ন ইউরো বরাদ্দ করেছে।

জোহানসন বলেছিলেন, “এই সহায়তার লক্ষ্য শীতকাল শুরু হওয়ার আগে সামোস, চিওস, কোস এবং লেসবোস দ্বীপগুলিতে নতুন শিবিরের নির্মাণ কাজকে ত্বরান্বিত করা।”

অভিবাসীরা সবসময় এই দ্বীপগুলিতে, বিশেষত মরিয়া শিবিরের খারাপ অবস্থার মধ্যে বসবাস করতেন, পাশাপাশি যে নতুন শিবিরে তাদেরকে স্থানান্তর করা হয়েছিল, সেই “কারা টিপে” শিবিরে ছয় হাজারেরও বেশি অভিবাসী রয়েছে, যাদের বেশিরভাগই শিশু।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং এথেন্স ২০২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে লেসবসের রাজধানী মাইতিলিন থেকে আধ ঘন্টা দূরে বালি’তে নতুন সংবর্ধনা শিবির স্থাপনের জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

সামোস দ্বীপে অবস্থিত “ভ্যাথি” শিবিরটি অভিবাসীদের দুর্বল অবস্থার আরেকটি উদাহরণ, কারণ তারা কাঠের ঝুপড়ি বা টারপলিন এবং কম্বল দিয়ে তৈরি আশ্রয়কেন্দ্রগুলিতে বাস করছে। ইনফোমিগ্র্যান্ট এর এক এমএসএফ কর্মকর্তার পূর্ববর্তী বিবৃতিতে এ তথ‍্য উঠে আসে।

এছাড়াও, ইউরোপীয় কমিশনার গ্রীককে এজিয়ান অঞ্চলে পুশব্যাক ও জোরপূর্বক প্রত্যাবর্তন সম্পর্কিত অভিযোগের বিরুদ্ধে তদন্ত করার আহ্বান জানিয়েছে এবং তুরস্ককে গ্রীস থেকে ফিরে আসা অভিবাসীদের গ্রহণ করার আহ্বান জানায়।

উল্লেখ‍্য, ২০১৪ সালে স্বাক্ষরিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও তুরস্কের মধ্যে বিদ্যমান নির্বাসন চুক্তি সত্ত্বেও আঙ্কারার তাদের গ্রহণ করতে অস্বীকার করলে, অ্যাথেন্স প্রায় ১,৫০০ প্রত্যাখ্যাত আশ্রয়প্রার্থী তুরস্কে প্রত্যাবাসনের জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়নের সহায়তার অনুরোধ করেছিলেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.