ঘুষ দিলে সবই মেলে, চাকরি বা টেন্ডার
ঘুষ দিয়ে প্রোমোশনের সিঁড়ি পেরিয়ে
কিছু হাঁদারাম হয়ে যায় নিধিরাম সর্দার।

ইশারায় কাছে ডাকে, ঘুষের গন্ধ যবে আসে নাকে
ঘুষ দিলে কি আর কাজ আটকে থাকে,
বড়বাবু – ছোটবাবু সবাই করেন কাজ সাথে,
ঘুষের পয়সা যখন দেখে চোখে জ্যোতি।
ভুলে যায় সকল বিভেদ, থাকে না কো কোন নিয়ম-নীতি।

নামী দামী গাড়ী চড়ে – বিদেশ ঘুরে, সবই যে ঘুষের পয়সায়!
কাজের বায়নায় গেলে ভাই
অফিসের বড় বাবুদের আদর-আপ্যায়নের শেষ নাই।

ঘুষ নাই ধুচ্ছাই, এখন কথা বলার সময় নাই।
কালকে বাদে পরশু আসেন ভাই,
পরশু গেলে তরশু বলে
এমনি সময় যাচ্ছে চলে
অফিসে যত টেন্ডার সবই এখন অন্যের দখলে
টের পেলাম ঢের ঘুষ না দিলে, সবই যায় রসাতলে।

পোস্টিং প্রমোশন খুশি মনে পেতে যদি চাও?
ঘুষের স্যুটকেস নিয়ে তবে, বসের বাড়ি যাও।
বস বলবে শেষে মুচকি হেসে,
এসবের কি ছিলো দরকার
পোস্টিং না প্রমোশন কোনটা চাই তোমার,

কাজের জন্য ঘুষের টাকা তুমি দিয়েছো?
ঘুষের অপার মহিমা, তুমি তবে জেনেছো।
ঘুষের গন্ধ পেলে নেচে উঠে মনটা, আর বাকি সব ঘন্টা।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.