স্টাফ রিপোর্টার, মুসা আকন্দ, নাটোর:
নাটোরের বড়াইগ্রামে ভারী বর্ষণে প্রায় অর্ধশত পুকুর প্লাবিত হয়ে সব মাছ ভেসে গেছে। উপজেলার গুডুমশৈল ও বিল দবিলার এসব পুকুরের দুই থেকে আড়াই কোটি টাকার মাছ বের হয়ে গিয়েছে বলে দাবী ক্ষতিগ্রস্থ খামারীদের।

স্থানীয়রা জানান, গত রোববার থেকে শুরু হওয়া টানা চারদিনের ভারী বর্ষণে বিল ও বিল সংলগ্ন মরা বড়াল নদীর পানি ব্যাপক বেড়ে যায়। বিলের মুখে নদীর চুলকাটি অংশে স্থাপিত সুইস গেইটের পাল্লা দীর্ঘদিন ধরে অকেজো হয়ে রয়েছে। এতে নদীর পানি সহজেই এই অকেজো সুইস গেইট দিয়ে বিলে ঢুকে পড়েছে। একদিকে ভারী বর্ষণ, অপরদিকে নদীর পানি ঢুকে বিলের মাঝখানের প্রায় ৫০টি পুকুর প্লাবিত হয়ে সব মাছ ভেসে গেছে।

গুডুমশৈল এলাকার সরকার ফিশারিজ এন্ড এগ্রো লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাকির হোসেন সরকার জানান, বিলে আমার মোট ১০ একর জলকরের পুকুর রয়েছে। এসব পুকুরে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ করেছিলাম। কয়েকদিনের ভারী বর্ষণে বিলের পানি বেড়ে পুকুরের পাড় ডুবে গিয়ে প্রায় ৩০-৩৫ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে। ক্ষতিগ্রস্থ মৎস্য খামারী সেলিম রেজা, দুলাল হোসেন, রজব আলী, জাহাঙ্গীর, মহিউদ্দিন, বাচ্চু ও আজাদ রহমান বলেন, খামারের সব মাছ ভেসে গিয়ে আমাদের এখন পথে বসার উপক্রম হয়েছে। এ ক্ষতি আমরা কিভাবে পোষাবো ভেবে পাচ্ছি না।

এ ব্যাপারে উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, এটা একটা প্রাকৃতিক দূর্যোগ, এখানে অধিদপ্তরের কোন কিছু করার ছিলনা। তবে ক্ষতিগ্রস্থ মৎস্য খামারীরা আমাদেরকে বিষয়টি জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে খোঁজ খবর নিয়ে পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.