মুসা আকন্দ, নাটোর প্রতিনিধি :
ছয়বার ট্রাকের নাম্বার প্লেট পরিবর্তন করেও ট্রাকসহ ধরা পড়ল ডাকাতদল। গরু সহ ট্রাক ছিনতাই করে শেষ রক্ষা হল না ডাকাত দলের। ১৮ জুলাই নাটোরের বনপাড়া নাটোর হাটিকুমরুল মহাসড়কের পাটোয়ারী তেল পাম্পের পাশ থেকে অভিনব কায়দায় ডাকাতি হওয়া ট্রাকটি ৩ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার ডাচ বাংলা ব্যাংকের সামনে থেকে উদ্ধার এবং ৫ ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার বেলা এগারটার দিকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা। আটককৃত ডাকাতরা হল বড়াইগ্রাম উপজেলার কায়েমকোলা গ্রামের জামান মণ্ডলের ছেলে ফজলে রাব্বী,একই উপজেলার আহমেদপুর পশ্চিম পাড়া এলাকার জান্টু প্রামাণিকের ছেলে ফরহাদ হোসেন,আসাদ খাঁর ছেলে বিল্লাল হোসেন,কুমিল্লা দাউদকান্দি উপজেলার তালতলী গ্রামের মৃত চান মিয়ার ছেলে আব্দুল আওয়াল,ঢাকার নবাবগঞ্জ থানার পাড়গ্রাম এলাকার মৃত ইয়াকুব মিস্ত্রির ছেলে বাবুল মিয়া ।
প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার আরো জানান নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন চিটাগাং রোডের একটি চায়ের দোকানে বসে আটককৃতরা ডাকাতির পরিকল্পনা করে। সেই মোতাবেক দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়িয়া উপজেলার আমবাড়িয়া হাটে গিয়ে ট্রাকে গরু ভর্তি করে বগুড়ার তিনমাথার একটি হোটেলে খেতে বসে।তারা সবাই মিলে গরু ভর্তি ট্রাক ছিনতাই করার পরিকল্পনা করে। ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ট্রাকটির বিভিন্ন স্থানের ৬টি নাম্বার প্লেট পরিবর্তন করার পরিকল্পনা করে যেন তাদের সনাক্ত করা না যায়। সেই মোতাবেক তারা নারায়ণগঞ্জ থেকে দিনাজপুর পর্যন্ত মোট ছয়বার ট্রাকের নাম্বার প্লেট পরিবর্তন করে।তাদের সেই পরিকল্পনা মোতাবেক মামলায় ঘটনা তারিখ ও সময় ঘটনাস্থলে গরু ভর্তি ট্রাক নিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে পুলিশের একটি চৌকস দল বিভিন্ন স্থানের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার ডাচ বাংলা ব্যাংকের সামনে থেকে ৩ নভেম্বর রাত্রি আটটার দিকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ট্রাকসহ ওই আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়।অবশিষ্ট পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে বলে জানান তিনি। তবে গরুগুলি উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.