সম্পাদনা ডেস্ক:
সারাদেশ যখন ধর্ষণকারীদের বিচারের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি করছে, ঠিক তখনই ধর্ষণের জন‍্য নারীর পোশাককে দায়ী করে মন্তব‍্য করেন ঢালিউডের আলোচিত অভিনেতা ও পোশাক ব্যবসায়ী অনন্ত জলিল।

এমন প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করে সমালোচনার ঝড় তুলেছেন অনন্ত জলিল। তার ভিডিও শেয়ার করে অনেকেই প্রতিবাদ জানান। একজন অভিনেতার কাছ থেকে এমন মন্তব্য হতাশাজনক বলে দাবি করেন তারা। তারকাদের কেউ কেউ তাঁকে বয়কট করারও আহ্বান জানিয়েছিলেন।

শেষ পর্যন্ত প্রতিবাদ ও সমালোচনার মুখে নিজের ভিডিওতে সংশোধন এনেছেন অনন্ত। প্রথমে পোস্ট করা ভিডিওতে নারীর পোশাক সংক্রান্ত সব মন্তব্য মুছে দিয়ে নতুন সম্পাদনা করেছেন। ৬ মিনিটের ভিডিওটিকে ৩ মিনিটের করেন এবং শিরোনামে লিখেন, কোন বিতর্কে জড়াতে চাইনা আমি তাই উক্ত বিষয়টি সংশোধন করে দিলাম। কেউ ভুল বুঝে থাকলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

জলিল,, অক্টোবরের ১০ তারিখে তার ফেসবুক পেজে ৬ মিনিট ১৭ সেকেন্ডের একটি ভিডিও পোস্ট করেন। ভিডিওটিতে নারীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘তোমাদের ভাই হিসেবে কিছু কথা বলতে চাই। অন‍্য দেশের মেয়েদের মতো মডার্ন হতে গিয়ে বিদেশি সংস্কৃতির পোশাক পরছো। এসব পোশাকের জন্য রাস্তার বখাটেরা তোমাদের ফিগার নিয়ে নানা কথা বলে। আর তাদের মাথায় ধর্ষণের চিন্তা আসে।’

জলিল আরও বলেন, ‘আমার কথাগুলো আজ তিতা মনে হতে পারে, খুব তিতা। কারণ, এর আগে আমি কখনোই এ ধরনের কথা বলিনি। কেন এ ধরনের পোশাক পরতে হবে? এগুলো কি মডার্ন ড্রেস, নাকি অশালীন? ছেলেদের মতো রাস্তায় বের হয়ে যাও একটা টি-শার্ট পরে। নিজেকে অনেক মডার্ন মনে করো। তারপর ইজ্জত হারিয়ে বাসায় যাও। হয় আত্মহত্যা করো, নয়তো কাউকে আর মুখ দেখাতে পারো না। শালীন পোশাক পরলে যারা বখাটে, যারা ধর্ষণের চিন্তাভাবনা করে, তারাও তোমার দিকে তাকাবে না। সম্মান করবে। মাটির দিকে তাকিয়ে চলে যাবে।’

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.