শোনে রাখুন আপনি! ইদানীং কুকুর পুষে আপনাদের সমাজ,
আপনাকেও কুকুর পুষতে হবে….

কুকুর খুব প্রভুভক্ত, প্রভুর ইচ্ছে হলেই কথা বলে, না’হয় চুপ থাকে।
কুকুর খুব মনোযোগী, প্রভুর আঙ্গুলের দিকেই তার সব খেয়াল, সারাক্ষণ তার আঙ্গুলের দিকে চেয়ে থাকাই তার জীবনের সহজ ব্রতী বলে মানে, কেবল আপনাদের ইশারায় চলে।

একবার এক তরুণীকে হত্যা করলো তার মালিক, মনে আছে?
আমাদের বলা হলো আত্মহত্যা; আমরা মেনে নিলাম,
মেয়েটি না’কি চরিত্রহীন; তাও মেনে নিলাম।
মেয়েটি কাঁদতে জানে, ডায়েরীতে লিখতেও জানে; একদিন তার বুকের ভেতর কষ্ট নামের বরফ পাহাড় গলতে লাগলো,
প্রথমে নদী তারপর বরফগলা পানির শ্রুত, সেই বহমান শ্রুতের কলকলানি শব্দ আমাদের কানে আসলো,
প্রথমে আফসোস হতে থাকলো, নিজেকে মানুষ ভেবে…
হঠাৎ আপনাদের কথা মনে আসতেই ফিরে এলাম,
দাসত্ব যে আমাদের চরিত্র, মগজে আর মাংসে’ আমরা ভুলে যাই কি করে?

যাইহোক, বরং আমরা দায়ী করলাম; সমাজের প্রেক্ষাপট আর মূল্যবোধের অবক্ষয় নামক সুন্দর সুন্দর শব্দ দ্বারা
এক বাক্যে মেয়েটিকে বেশ্যা বললাম।
অতঃপর খুনি বেশ আয়েশি মেজাজে আমাদের কিনে নিলো পুনরায়
আমরা তার পুষা কুকুর হয়ে গেলাম, ভুল বলেছি
আমরা কুকুর ছিলাম তখনো শুধু ভুলে বসেছিলাম আমাদের প্রভুর নাম,
আপনাদের অবদানকে ভুলি কি করে!
বেওয়ারিশ থেকে জাতে উঠা যে আপনার অবদান ওয়ারিশ কিংবা গোলাম; প্রভুর সব ইচ্ছে! জয় হোক আপনার।

তারপর যতো উপকরণ দরকার, তার সবটুকু ঢেলে দিয়ে মেয়েটিকে বেশ্যা বানানো হলো,
খুব সহজেই জেনে গেলো সবাই ; প্রভুভক্ত কুকুর সমাজে বেশ্যারা খুন হয়,
তারা খুন হতেই পারে; খুন হওয়াটাই নিয়ম।

মেয়েটি বেশ্যা বলে; আমরা কুকুর সমাজ তার শরীর নিয়ে খেললাম,
সুন্দর সব বিশেষণ মিশ্রিত শব্দের বাক্য গঠনে ব্যাস্ত হলাম
শেষে তার মাংসের অবশিষ্ট যা ছিলো আমরা খেয়ে নিলাম আয়েশি মেজাজে,
অতঃপর প্রভুর জয়ে জয়ধ্বনি গেয়ে উঠলাম এক সুরে
‘প্রভুর জয় হোক , জয়তু প্রভু’

কাজী জহির আহমেদ

পতেঙ্গা, চট্টগ্রাম।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.