সৈয়দা ইয়াসমীন; সম্পাদনা ডেস্ক:
সিজনাল ও ননসিজনাল ক‍্যাটাগরিতে বাংলাদেশীসহ ৩০,৮৫০ ননইইউ নাগরিকদের কর্মী হিসেবে প্রবেশাধিকার দিচ্ছে ইতালি। অনেক বছর পর পিছিয়ে থাকা বাংলাদেশও স্থান পেলো এই তালিকায়।

এটা ৭ জুলাই ২০২০ মন্ত্রিপরিষদের রাষ্ট্রপতির ডিক্রি, যা ১২ ই অক্টোবর, সোমবার অফিসিয়াল জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে (জি.ইউ. জেনারেল সিরিজ, এন.২৫২, ১২ ই অক্টোবর, ২০২০)।

তন্মধ‍্যে কৃষি ও পর্যটন-হোটেল সেক্টরগুলিতে বেসরকারী কর্মসংস্থানের জন্য ১৮,০০০ মৌসুমী অধস্তন কর্মী হিসেবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অ-নাগরিকদের প্রবেশাধিকার দেওয়া হচ্ছে।

যে দেশগুলো থেকে কৃষি ও পর্যটন-হোটেল সেক্টরে সিজনাল/মৌসুমী কর্মী হিসেবে প্রবেশাধিকার দেওয়া হচ্ছে তারা হলো আলবেনিয়া, আলজেরিয়া, বাংলাদেশ, বসনিয়া-হার্জেগোভিনা, কোরিয়া (কোরিয়া প্রজাতন্ত্র), আইভরি কোস্ট, মিশর, এল সালভাদোর, ইথিওপিয়া, ফিলিপাইন, গাম্বিয়া, ঘানা, জাপান, ভারত, কসোভো, মালি, মরক্কো, মরিশাস, মাল্ডোভা, মন্টিনিগ্রো, নাইজার, নাইজেরিয়া, উত্তর ম্যাসেডোনিয়া প্রজাতন্ত্র, সেনেগাল, সার্বিয়া, শ্রীলঙ্কা, সুদান, টিউনিসিয়া, ইউক্রেন। এবার পাকিস্তানও পাচ্ছে এই ক্ষেত্রে প্রবেশাধিকার।

এই কোটায় পরীক্ষার মাধ্যমে ৬,০০০ ইউনিট একই দেশের শ্রমিকদের জন্য সংরক্ষিত রয়েছে।

আরেকটি কোটায় ননসিজনাল/অমৌসুমী কর্মী, স্ব-কর্মসংস্থান ও কনভারশনের জন্য ১২.৮৫০ টি প্রবেশাধিকার রয়েছে। তার মধ‍্যে ৬,০০০ প্রবেশাধিকার থাকছে মালবাহী পরিবহন, নির্মাণ ও পর্যটন হোটেল খাতে।

এই ক‍্যাটাগরিতে সুযোগ পাচ্ছে আলবেনিয়া, আলজেরিয়া, বাংলাদেশ, বসনিয়া-হার্জেগোভিনিয়া, কোরিয়া (প্রজাতন্ত্র) কোরিয়া), আইভরি কোস্ট, মিশর, এল সালভাদর, ইথিওপিয়া, ফিলিপাইন, গাম্বিয়া, ঘানা, জাপান, ভারত, কসোভো, মালি, মরক্কো, মরিশাস, মালডোভা, মন্টিনিগ্রো, নাইজার, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, উত্তর ম্যাসেডোনিয়া প্রজাতন্ত্র, সেনেগাল, সার্বিয়া, শ্রীলঙ্কা, সুদান, তিউনিসিয়া, ইউক্রেন এবং যে দেশগুলির সাথে ২০২০ সালের মধ্যে মাইগ্রেশন সহযোগিতা চুক্তি হয়েছিল।

এই ক‍্যাটাগরিতে বাকি প্রবেশাধিকারগুলো বরাদ্ধ করা হয়েছে নন-ইইউ নাগরিকদের জ‍ন‍্য যারা ভেনিজুয়েলায় বসবাসরত ইতালীয় বংশোদ্ভূত কর্মী এবং তাদের দেশে প্রশিক্ষণ ও শিক্ষা কার্যক্রম সম্পন্ন করেছেন। স্ব-কর্মসংস্থানের জন্য আবাসনের অনুমতিতে বা অন্য কোন কারণে ইতিমধ্যে সেখানে আটকে আছেন।

১৩ অক্টোবর সকাল ৯টা থেকে ভিসা আবেদনের ফর্ম সংগ্রহ করা যাবে এবং পর্যায়ক্রমে আবেদন করা যাবে ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত।

সূত্র: ইমিগ্রেশন পোর্টাল, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ইতালি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.