আজ ২৬শে মার্চ, মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস! সামনে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা জোগায় দিনটি। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী স্বাধিকারের দাবিতে জেগে ওঠা নিরীহ বাঙালির ওপর চালিয়েছিল নির্মম হত্যাযজ্ঞ।

বাংলাদেশ II সুকান্ত দেব, নিজস্ব প্রতিনিধি:

বঙ্গবন্ধু গ্রেপ্তার হওয়ার আগমুহূর্তে ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করা হয়। স্বাধীনতার ঘোষণা ও মুক্তিযুদ্ধের সূচনার এই দিনটি জাতি নিবিড় আবেগের সাথে স্মরণ কর; শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে দেশের জন্য আত্মদান করা বীর সন্তানদের।

সেদিনের পরে মৃত্যুর বিভীষিকা থেকে এক হয়ে মাথা তুলে দাঁড়িয়েছিল দেশের মানুষ। ওই দিন দিবাগত রাতেই (একাত্তরের ২৫ মার্চ) গ্রেপ্তার হন বঙ্গবন্ধু। তার আগেই বার্তা পাঠিয়ে দেন স্বাধীনতার ঘোষণার। এরপর গঠিত হয় প্রবাসী সরকার। নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষের আত্মদান, ৩ লাখ নারীর সম্ভ্রম আর বিপুল ক্ষয়ক্ষতির মধ্য দিয়ে অর্জিত হয় বিজয়। পৃথিবীর মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন বাংলাদেশের।

মহান স্বাধীনতা দিবসে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট পুস্পস্তবক অর্পন করে গভীর শ্রদ্ধা জানিয়েছে সকল বীর শহীদদের প্রতি।

মহাজোটের সহাপতি, ড.সোনালি দাশ বলেন, আজ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী। আজ থেকে ৫০ বছর আগে ঘোষিত হয়েছিল এ দেশের স্বাধীনতা। বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের স্বাধীনতার অর্ধশতাব্দী উদযাপন করছি আমরা-এ এক আনন্দঘন অনুভূতি।

তবে আমাদের স্বাধীনতার ইতিহাস যেমন গৌরবের, তেমনি বেদনারও। অনেক রক্ত ও আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত হয়েছে আমাদের স্বাধীনতা। আজ আমরা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি সেই সব জানা-অজানা শহীদদের, যারা তাদের বর্তমানকে বিসর্জন দিয়ে গেছেন এ দেশের ভবিষ্যৎকে সুন্দর করার জন্য।

আমরা শ্রদ্ধা জানাই স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মুক্তিযুদ্ধের সব সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধাকে। আমরা কৃতজ্ঞতা জানাই ভারত ও রাশিয়াসহ (তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন) সকল সহযোগিতাপূর্ণ রাষ্ট্রগুলোকে।

হিন্দু মহাজোটের সাধারণ সম্পাদক ডা.মৃত্যুঞ্জয় রায় বলেন, আমাদের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি! হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাংগালি জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে আমরা ঐক্যবদ্ধ, সকল অন্যায়, অবিচার, দুর্নীতি ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে আমরা লড়াই করব, আর বঙ্গবন্ধু তনয়া, জাতির মানস কন্যা প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে, বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। বাংলাদেশ আজ বিশ্ব দরবারে নেতৃত্ব দিচ্ছে।

মহাজোটের প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন শ্রীযুক্ত মিঠু রঞ্জন দে সহ-সভাপতি, শ্রীমান, সঞ্জয় রায় চৌধুরী যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, সুমন দাস সহ সাংগঠনিক সম্পাদক, প্রদীপ রায় চৌধুরী ,সহ সাংগঠনিক সম্পাদক , সহ প্রচার সম্পাদক রাজু সাহা,সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক সজল দাস, অরুণ চন্দ্র মজুমদার তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক,বিল্পব ভোমিক।

এছাড়াও ছিলেন আহ্বায়ক যুব হিন্দু মহাজোট সহ সুকুমার যিশু, সঞ্জর রার চৌধুরী, প্রদীপ রায় চৌধুরী, সহ-সভাপতি কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি ও প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক বাহরাইন, উওম কুমার দাস সাংগঠনিক সম্পাদক, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি, রিপন দে, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক,রিজু রাম দে, বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ছাত্র মহাজোট, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি, পুলিন মিস্ত্রী (কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস‍্য), রুপন কুমার মিত্র (কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস‍্য) প্রমুখ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.