নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর:
এবারের ভয়াবহ বন্যার করাল গ্রাসে শেষ পর্যন্ত মাথা গোঁজার ঠাঁইটুকু নিয়ে গেল আঃ মজিদের। বুধবার রাতে ভাগনাগরকান্দি (মধ্যপাড়া) আঃ মজিদ কাজী ওরফে (উম্মর )এর একটি মাত্র মাথা গুজার ঠাঁই মাটির একটি ঘর ধ্বসে পড়ে গেল। অতিরিক্ত বর্ষণ ও ভয়াবহ বন্যার পানি ঘরের মধ্যে প্রবেশ করায় তার মাটির দেয়াল ঘরটি ধসে পড়ে যায় বলে জানান এলাকাবাসী।, এতে করে ঐ পরিবারে এখন নেমে এসেছে হতাশা এবং দুশ্চিন্তার কালো মেঘ।

এখন মজিদের একটাই ভাবনা কীভাবে আবার মাথা গোঁজার ঠাঁই টুকু তৈরী করা যায়।
স্থানীয়রা জানান, এতো বড় বন্যা তারা এর আগে কখনো দেখেননি। তিন দিনে বন্যার পানি মাঠ-ঘাট ছাড়িয়ে বাড়িঘর প্লাবিত করে। এই বছরে এর আগের বন্যায় সিংড়ার অনেক বাড়ি-ঘর তলিয়ে গেলেও মজিদের ঘর অটুট ছিল। এবারের বন্যা সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে গেল।


ভুক্তভোগী আঃ মজিদ জানান , যতদিন কোন সরকারি-বেসরকারি সহায়তা না পাচ্ছি ততদিন পরিবার নিয়ে এই চালার নিচেই বসবাস করতে হবে। আমি এলাকার স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার্দের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.