মিয়ানমারের সেনা অভ্যুত্থান কে কেন্দ্র করে প্রতিদিনই বিক্ষোভ চলছে রাজধানীসহ বিভিন্ন শহর গুলোতে। বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশ ও সেনাবাহিনী কর্তৃক রাবার বুলেট ,গুলি ও নির্যাতনের শিকার হয়ে এ পর্যন্ত অনেক মানুষ মারা গিয়েছে।

এশিয়া II আলামিন সিকদার ইরাজ, বার্তা কক্ষ:


জাতিসংঘে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে এ পর্যন্ত ৫০জন বেসামরিক বিক্ষোভকারী সেনা বাহিনী ও পুলিশ সাথে সহিংসতার ঘটনায় মারা গিয়েছেন।


বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গুনে নিরাপত্তা বাহিনী কর্তৃক গ্রেপ্তার হওয়ার পরে মিয়ানমারে পুলিশ হেফাজতে মারা গিয়েছেন অং সান সু চি-র দলের এক কর্মকর্তা।
রবিবার ইউ খিন মং লাট্টের মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।


বিক্ষোভকারী এবং অন্যান্য কর্মীদের বরাত দিয়ে জানা যায় যে পুলিশ অন্যরা তাকে আটক করার সময় মারধর করেছিল এবং কঠিন জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল।


মিয়ানমারের পত্রিকা দ্য ইরাওয়াদির খবরে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক সাধারণ নির্বাচনে তিনি সু কির ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) প্রার্থীদের পক্ষে সক্রিয়ভাবে প্রচার করেছিলেন এবং সমাজসেবামূলক কাজের জন্য তিনি খুব জনপ্রিয় ছিলেন।


শনিবার দুপুর ২ টার দিকে (১৫:৩০জিএমটি) তাকে “বাড়ি থেকে নিয়ে যাওয়ার আগে তাকে মারধর ও লাথি মেরে হত্যা করা হয়” প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদ সংস্থা।


রবিবার সকালে তার পরিবারকে জানানো হয়েছিল যে তিনি “অজ্ঞান” হয়ে মারা গেছেন এবং তারা তার লাশ সামরিক হাসপাতাল থেকে নেওয়ার জন্য।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.