হঠাৎ একদিন


একদিন হঠাৎ করেই আমার কথা তোমার মনে পড়বে
অপ্রস্তুত তুমি হঠাৎ ভড়কে যাবে। লজ্জায় নিজের মুখ লুকাবে!
ভয়ে সংশয়ে তুমি টেনে হিঁচড়ে আমাকে লুকানোর চেষ্টা করবে
তুমি মনে প্রাণে চাইবে পরিচিত কেউ আমাকে না দেখুক
লোকলজ্জার ভয়ে সর্বাত্মকভাবে আড়াল করতে চাইবে
এবং তারপর সেদিন তুমি কার্যতই ব্যর্থ হবে
আমাকে ভুলে থাকার তোমার কলাকৌশল সব ব্যর্থ হবে।
একদিন হঠাৎ করেই তোমার ভেতরে দারুণ ঝড় উঠবে
সুনামির আঘাতে লণ্ডভণ্ড হবে সাগরলতা ফুলের জমিন
বালিয়াড়ি সংসার; কিংবা লাল কাঁকড়ার নকশী জমিন
একদিন হঠাৎ ভিজবে তোমার শুষ্ক সৈকত; নোনতা জল।
হঠাৎ একদিন সব লোকলজ্জা ও ভয়ের মাথা খেয়ে
তুমি কেবলই আমাকে খুঁজতে থাকবে; তন্নতন্ন করে খুঁজবে,
ছাপান্ন হাজার বর্গমাইলের কোথাও আর আমাকে পাবে না!
সেই দিনের লুকোচুরি খেলায় নিরঙ্কুশভাবে আমিই জিতব
তোমার বুকফাটা আর্তনাদে সেইদিন আমার পুণর্জন্ম হবে।




মানুষ


আমি গোলাপ দেখে অনায়াসে বলতে পারি
এটা গোলাপ।
আমি পাখি দেখে দ্বিধায়হীন গলায় বলতে পারি
এটা পাখি
আমি নদী দেখে আত্মবিশ্বাস নিয়ে বলতে পারি
এটা একটা নদী
তেমনি করে আকাশ, দূরের পাহাড়, একটা লক্ষ্মী পেঁচা
এমন কি শুঁয়োপোকা, টিকটিকি, বনের বাঘ-সিংহ
লতানো সাপ দেখে সহজেই আমি চিনি; বলতে পারি।

অথচ আমি মানুষ দেখে সহজে বলতে পারি না
তিনি একজন মানুষ!




রফিকুল নাজিম
কবি, গল্পকার ও সম্পাদক।
পলাশ, নরসিংদী।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.