মোহাম্মদ আদনান মামুন, নিজস্ব প্রতিবেদক-,

বালি  ব্যবসায়ীর কাছে চাঁদা না পেয়ে বালি উত্তোলনের ড্রেজার মিন্ত্রি রফিকুল ইসলাম (৪০)কে,অপহরণ করে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে।
রফিকুল ইসলাম পার্শ্ববর্তী কাপাাসিয়া উপজেলার কাপাাসিয়া মধ্যপাড়া এলাকার আব্দুল জব্বারের ছেলে।
গাজীপুরের শ্রীপুরে(১৯ এপ্রিল) সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে বরমী পুর্ব পাড়া হাসিবুর রহমান রামিমের বালি মহলে এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় বালি ব্যবসায়ী উপজেলার বরমী পুর্ব পাড়া এলাকার আফাজ উদ্দিন মাষ্টারের ছেলে হাসিবুর রহমান রামিম বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে ও ৪/৫ জনকে অচেনা করে শ্রীপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।
অভিযুুক্তরা হলেন,উপজেলার হরতকিরটেক এলাকার আবুল কাসেম মিন্টু মিয়ার ছেলে হদয় মিয়া (২৯),বরমী গ্রামের মােবারক হােসেন ছেলে লিটন(৪৫),আঃ হাকিম প্রধানের ছেলে বাদল প্রধান (বাঘ বাদল)৪৬, আব্দুর রউফ এর ছেলে মােঃ জাকির হােসেন (৪৫), নান্দিয়া সাঙ্গুন এলাকার ছালে আহাম্মদের ছেলে মােবারক হােসেন (৪০)দাইবাড়িরটেক এলাকার ইন্তাজ উদ্দিনের ছেলে জসিম (৪০)।
অভিযোগের ভিত্তিতে হৃদয় মিয়া নামে একজনকে আটক করেছে শ্রীপুর থানা পুলিশ। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শ্রীপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক অপারেশন গোলাম সারোয়ার জানান,অভিযুক্তরা বেশ কিছু দিন ধরে বালি ব্যবসায়ীর কাছে ব্যবসা বাবদ প্রতি সপ্তাহে দেড়লাখ টাকা দাবি করে বিভিন্ন হুমকি দিয়ে আসছিল। তাদের দাবিকৃত টাকা না পেয়ে গত ১৯ এপ্রিল রাত সাড়ে ১১ টার দিকে ড্রেজার মিস্ত্রির রফিকুল ইসলামকে মোটরসাইকেলে করে তুলে নিয়ে পার্শ্ববর্তী পেলাইদ এলাকায় গহীন গজারী বনে নিয়ে মারধর করে। তাৎক্ষণিক পুলিশকে খবর দেয়া হলে হৃদয় নামের এক জনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। অভিযুক্ত হৃদয় ও বাদলের নামে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানান তিনি।
শ্রীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান,এ বিষয়ে চাঁদাবাজি ও অপহরণ মামলা হয়েছে।অপহরণকারী দলের সদস্যের একজনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.