মোহাম্মদ আদনান মামুন, নিজস্ব প্রতিবেদক-
গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার মাষ্টারবাড়ী (লিচুবাগান) এলাকায় এক দোকানী মোখলেসুর রহমানকে (৩২) হত্যার ঘটনায় একমাত্র অভিযুক্ত স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ায় মামলা রুজুর ৩০ ঘন্টার মধ্যে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ। বুধবার (২৮ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই এলাকার এক ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাতে গলা কেটে হত্যা করা হয়। ওই রাত ৯টা ১০মিনিটে মামলা রুজু এবং পরদিন রাত সাড়ে ১০টায় অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়। শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহফুজ ইমতিয়াজ ভূঁইয়া খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
পরিদর্শক মাহফুজ ইমতিয়াজ ভূঁইয়া জানান, ওইদিন নিহতের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। একমাত্র অভিযুক্ত ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার নৈহাটি গ্রামের শামসুল হকের ছেলে গ্রেপ্তারকৃত রুবেল (৩০) ঘটনার দিন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) মফিজ মল্লিক জানান, ওই রাতে নিহতের স্ত্রী সুরভী আক্তার বাদী হয়ে থানায় হত্যার অভিযোগ করেন। বুধবার রাত ৯টা ১০ মিনিটে বাদীর অভিযোগটি আমলে নিয়ে মামলা হিসেবে রুজু করা হয়। মামলা রুজুর প্রায়৩০ঘন্টা পর বৃহষ্পতিবার (২৯ জুলাই) রাত সাড়ে ১০টায় ছিনতাইকৃত তিনটি মুঠোফোন, নগদ ১ হাজার ১১৭ টাকা, হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত চাকু, ১৬৪ ধারায় অভিযুক্তের জবানবন্দি রেকর্ডসহ বিজ্ঞ আদালতে অভিযোগপত্র উপস্থাপন করা হয়।
প্রসঙ্গত, বুধবার (২৮ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে পৌরসভার মাষ্টারবাড়ী (লিচুবাগান) এলাকায় অভিযুক্ত রুবেল তিনদিন না খাওয়ার কথা বলে ওই ব্যবসায়ীর দোকানে প্রবেশ করে। এসময় হঠাৎ করে ব্যবসায়ীর টাকার বাক্স থেকে টাকা হাতিয়ে নিতে থাকে। এসময় বাধা দিলে অভিযুক্ত ব্যবসায়ীর গলায় ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটানাস্থলেই ব্যবসায়ী নিহত হন। পরে রক্তমাখা শার্ট পড়ে দোকান থেকে বের হলে স্থানীয়রা অভিযুক্ত রুবেলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।
গাজীপুর জজ আদালতের আইনজীবি এমদাদুল হক মাসুম বলেন, মামলাটি জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গৃহীত হওয়ার পর ট্রায়ালের জন্য সরাসরি জজ আদালতে চলে যাবে। এ ক্ষেত্রে বিজ্ঞ আদালতের ইচ্ছার ভিত্তিতে বিচারকার্যের দ্রুত সমাপ্তি ঘটার সম্ভাবনা বিদ্যমান।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.