আর্লি-স্টার ডেস্ক:
বিভিন্ন তথ‍্যসূত্রের মাধ‍্যমে আমরা শুনতে পাচ্ছি যে, ফ্লুস্সি ডিক্রী (Flussi Decree)-এর আওতায় ইতালি আসতে আগ্রহী বাংলাদেশিদের প্রলোভিত করতে বিভিন্ন দালাল চক্র সক্রিয় হয়ে উঠেছে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ডেক্রেতো ফ্লুস্সি (Decreto Flussi) এর আওতায় ইতালিতে কর্মী নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে দালালদের ভুয়া প্রলোভনের মাধ‍্যমে কোন ধরণের অবৈধ বা অনিয়মতান্ত্রিক আর্থিক লেনদেন না করতে ইচ্ছুক কর্মীগণসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে সতর্ক করেছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

তাই সিজনাল ও নন-সিজনাল কর্মী হিসেবে ইতালিতে আসতে ইচ্ছুক কর্মীদের অবগতির জন্য আবেদনের নিম্নোক্ত তথ্যসমূহ প্রদান করা হলো:

১. ইতালিস্থ নিয়োগকারী/মালিককে তার জন্য নির্ধারিত স্পীড ইমেইল থেকে তিনি যাকে নিয়োগ দিতে চান তার নাম, পাসপোর্ট নম্বর উল্লেখ করে ইতালির স্থানীয় ডিসি অফিসে (প্রেফেত্তুরা) একটি আবেদন করতে হবে।

২.নিয়োগকারী/মালিকের আয়সহ অন্যান্য বিষয় বিবেচনা করে ডিসি অফিস (প্রেফেত্তুরা) থেকে অনাপত্তিপত্র প্রদান করা হলে তা তিনি বাংলাদেশে ব্যক্তির নিকট প্রেরণ করবেন।

৩. তারপর ইতালিতে আসতে ইচ্ছুক কর্মীকে উক্ত অনাপত্তি পত্রসহ ইতালি দূতাবাসে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে।

৪.ভিসা পেয়ে ইতালিতে আসার পর নিয়োগকারী/মালিকের সাথে ইতালিতে স্থানীয় ডিসি অফিসে (প্রেফেত্তুরা) গিয়ে চাকুরির চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করতে হবে।

৫.এ প্রক্রিয়ায় আবেদন দাখিলের সময় সরকার নির্ধারিত রেভিনিউ স্ট্যাম্প (মার্কা দি বল্ল) বাবদ ১৬.০০ (ষোল) ইউরো ফি পরিশোধ করতে হবে। আবেদন দাখিলের সময় কারো সংশ্লিষ্ট হেল্প ডেস্কের সহায়তা নেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে, এ ক্ষেত্রে হেল্প ডেস্কের সার্ভিস চার্জ বাবদ ক্ষেত্র বিশেষে ৫০-১০০ ইউরো ফি পরিশোধ করার প্রয়োজন হতে পারে।

এছাড়া আবেদন দাখিলের ক্ষেত্রে অন্য কোনো খরচ নেই। ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ এর মধ্যে প্রাপ্ত আবেদনসমূহ বাছাই করে প্রত্যেক যোগ্য আবেদনকারীর অনুকূলে আলাদা আলাদা অনাপত্তিপত্র (নুল্লা ওস্তা) ইস্যু করা হবে। এটা পাওয়ার পর নিজ নিজ দেশে অবস্থিত ইতালিয়ান দূতাবাসের নির্ধারিত ভিসা ফি পরিশোধ করে আবেদন জমা দিতে হবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.