১ মে, আন্তর্জাতিক শ্রমজীবী দিবস, শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের দিন। বিশ্বব্যাপী শ্রমজীবী ​​মানুষের ঐতিহাসিক সংগ্রামকে স্মরণ করিয়ে দেয় এই দিনটি। এ দিবসটি বিশ্বের প্রায় সমস্ত দেশেই স্বীকৃত এবং যথাযথ মর্যাদায় পালিত হয়। আজকের দিনটি শ্রমজীবী ​​মানুষের জন্য আন্তর্জাতিক ছুটির দিন।

শাহারিয়া রহমান, প্রদায়ক:

১৮৮৬ সালের ১ মে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের ম্যাককমিক হার্ভেস্ট মেশিন কোম্পানির শ্রমিকেরা আট ঘণ্টা কর্মদিবসের দাবিতে সমাবেশ করেন। তাদের এই সমাবেশে গুলি চালায় পুলিশ। অধিকার আদায়ে নিজেদের রক্ত দিয়েছিলেন শ্রমিকেরা। সেই প্রেক্ষাপটেই বিশ্বব্যাপী আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস তথা মে দিবস পালন শুরু হয়।

১৮৮৬ সালে শ্রমিকদের আত্মত্যাগের ফলস্বরূপ আজ শ্রমিকরা সমস্ত সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছে। আজ তারা একটি সর্বনিম্ন মজুরি পাচ্ছে। তাদের রয়েছে চাকরির সুরক্ষা, নিরাপত্তা আইন এবং ৮ ঘন্টা কাজের সুযোগ।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রে আন্দোলন ও হতাহতের ঘটনাটি ঘটেছিল, কিন্তু শ্রমিক দিবস পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে। ১৮৮৯ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক সমাজতান্ত্রিক কংগ্রেসে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিশ্বের ৯০টি দেশ সরকারিভাবে আজকের দিনটি তথা মে মাসের প্রথম দিনটিকে যথাযথ মর্যাদায় আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস হিসেবে পালন করে থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরে ১ মে শ্রমিক আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবসের উৎপত্তি হলেও সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সোমবার যুক্তরাষ্ট্রে শ্রমিক দিবস পালিত হয়।

মে দিবস শ্রমিকদের আন্তর্জাতিক ঐক্যের দিন। এই দিনটি শ্রমিকদের শোষণের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে এবং ভাল কাজের পরিস্থিতি, ভাল বেতনের এবং আরও ভাল জীবনযাপন অর্জনের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়।

এই দিনটি শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধভাবে তাদের দাবি আদায় করতে অনুপ্রাণিত করে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *