হালিম মিক্স। ছবি: সংগৃহিত
হালিম আমাদের একটি ঐতিহ‍্যবাহী পুষ্টিকর সুস্বাদু খাবার। হালিম পছন্দ করেন না এমন বাঙালি খুব কমই পাওয়া যাবে।

আজকাল অনেকেই বাজারজাতকৃত হালিম মিক্স এর প‍্যাকেট কিনে রান্না করেন ঘরে নিজের হাতে তৈরি হালিমের স্বাদই আলাদা। যত ভালো ব্রান্ডই হোক না কেন, হাতের তৈরি খাবারের স্বাদ কখনো কেনা খাবারে পাওয়া যায় না। পুষ্টিগুণের কথা চিন্তা করলে তো ঘরে তৈরি খাবারের বিকল্প নেই।

তাহলে আসুন দেখা যাক্ আমরা ঘরোয়া উপাদান দিয়ে কিভাবে নিজেরা সুস্বাদু পুষ্ঠিকর হালিম তৈরি করতে পারি।

(ক) মাংস রান্নার উপকরণ: খাসির /গরুর মাংস দেড় কেজি , পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ , আঁদা বাটা ২ টেবিল চামচ , রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ, হলুদ গুড়া ১ টেবিল চামচ, মরিচ গুড়া ১/২ টেবিল চামচ, গরম মসলা দারুচিনি ,তেজপাতা ২ টি , বিরিয়ানি মসলা ১ টেবিল চামচ ,টালা জিরা গুড়া ১ টেবিল চামচ,টালা ধনিয়া গুড়া ১ টেবিল চামচ, লবন স্বাদ মত, তেল আধ কাপ , ঘি ৬ টেবিল চামচ।

(খ) ডাল যা যা লাগবে: মুগ ডাল ( টেলে নিতে হবে ) আধ কাপ , গম আধ কাপ , মাশকলাইয়ের ডাল আধ কাপ , মসুর ডাল ১/৪ কাপ , মটর ডাল হাফ কাপ , পোলাও চাউল হাফ কাপ।

(গ) হালিম মসলার উপকরণ: ১ টেবিল চামচ জিরা , ১/২ টেবিল চামচ ধনিয়া, ৪ টি এলাচি , ১ চা চামচ গোলমরিচ , একটা জায়ফলের অর্ধেক, ৩/৪ টি লবঙ্গ, ১/২ হাফ চা চামচ মৌরি।

সব মসলা একসাথে টেলে গুঁড়ো করে নিতে হবে । যারা ঝাল পছন্দ করেন, তাঁরা ৪/৫ টি শুকনা মরিচ টেলে এক সাথে গুঁড়ো করে নিতে পারেন।

পরিবেশনের জন্য যা লাগবে: পেঁয়াজ বেরেস্তা, আঁদা কুচি, কাচাঁমরিচ কুচি, ধনিয়া পাতা কুচি, লেবু।

প্রস্তুত প্রণালী:
ডালগুলো ৪ /৫ ঘন্টা পানিতে ভিজিয়ে নরম করে ব্ল‍্যান্ডার দিয়ে আধা ভাঙ্গা করে রাখতে হবে। হাঁড়িতে তেল গরম করে পেঁয়াজ কাটা দিয়ে হালকা ভাজা হলে আঁদা বাটা, রসুন বাটা দিয়ে কষিয়ে নিতে হবে। কষানো হলে সব মসলা দিয়ে পরিমাণ মতো লবণ দিয়ে, সাথে একটু পানি দিয়ে মসলা কষিয়ে নিতে হবে।

এরপর কষানো মসলার সাথে মাংস দিয়ে আবার কিছুক্ষণ মাংসগুলো কষিয়ে নিতে হবে। মাংস কষানো হয়ে গেলে আধা ভাঙ্গা করে রাখা ডালের মিশ্রন দিয়ে সব একসাথে কিছুক্ষন কষাতে হবে । কষানো হলে বেশি করে পানি দিতে হবে । এমন পরিমাণ পানি দিতে হবে যাতে করে মাংস , ডাল সিদ্ধ হয়ে হেভি গ্রেভি হয়।

একটু পর পর নেড়ে দিতে হবে এবং খেয়াল রাখতে হবে যেনো পুঁড়ে না যায় ৷ মধ‍্যম আঁচে ১ থেকে দেড় ঘন্টা রান্না করতে হবে, যতক্ষন পর্যন্ত হালিম সিদ্ধ না হচ্ছে । মনে রাখতে হবে, চুলায় রাখা অবস্থায় হালিম বেশি ঘন হলে, নামানো পর একদম খিচুরির মত আঠালো হয়ে যায়, খেতে ভালো হয় না।

হালিম হালকা ঘন ঘন হয়ে আসলে টেলে গুঁড়ো করে রাখা মসলা এবং ঘি দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে ৷
গরম গরম হালিম বাটিতে নিয়ে উপরে পেয়াজ বেরেস্তা ,কাচাঁমরিচ কুচি , আদা কুচি, ধনিয়া পাতা ছিটিয়ে, সাথে লেবুর রস দিয়ে পরিবেশন করুন গরম গরম সুস্বাদু হালিম।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *