আজ (২২ অক্টোবর) শুক্রবার ভোররাতে চট্টগ্রামের উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা শিবিরে সন্ত্রাসী দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলি হলে ৭ জন নিহত এবং ১০ জন আহত হয়েছেন বলে জানা যায়।

বাংলাদেশ || নিজস্ব প্রতিবেদক:

মাদক বিক্রির টাকা ভাগাভাগিসহ শিবিরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে বলে অভিমত রোহিঙ্গাদের এবং সংঘর্ষে অংশগ্রহণকারী দুই সন্ত্রাসী গোষ্ঠী রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের বলে নিশ্চিত করেছে রোহিঙ্গা সূত্র। তবে এই সংঘর্ষের মূল কারণ নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।

আজ ভোরে এই সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে ৪ জনের মৃত্যু হয় এবং আহত হন মোট ১০ জন। এরপর আহতদের মধ্য থেকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় আরও ৩ জনের। এ নিয়ে উক্ত ঘটনায় মোট সাতজনের মৃত‍্যু হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রোহিঙ্গা শিবিরে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ান উপ-অধিনায়ক।

ময়না তদন্তের উদ্দেশ্যে লাশগুলো কক্সবাজার সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানোর আয়োজন চলছে। অস্ত্রধারীদের গ্রেফতার অভিযান শুরু হয়েছে এবং এ ঘটনায় মুজিবুর রহমান নামে একজনকে অস্ত্রসহ আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার।

উল্লেখ্য, রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের শীর্ষ নেতা মহিবুল্লাহকে হত্যার ২৩ দিন পর উক্ত সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটলো। মহিবুল্লাহকে হত্যার ঘটনায় পাঁচ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং তাদেরকে তিন দিন করে দুই বার রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *